শ্রবণ দক্ষতা কাকে বলে | শ্রবণ দক্ষতার মূলনীতি | Definition and Principles of Listening Skills

শ্রবণ দক্ষতা হল মনোযোগ সহকারে শোনার কাজ বা ভালো শ্রবণ ক্ষমতা। কার্যকরী যোগাযোগের ক্ষেত্রে শ্রবণ দক্ষতা (Listening Skills) বিশেষভাবে কার্যকরী।

মানব জীবনে শ্রবণের একটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান বর্তমান। পৃথিবীর রুপ, রস, গন্ধ প্রভৃতি অনুভূতি করার জন্য আমাদের পঞ্চ ইন্দ্রিয়ের ব্যবহার হয়ে থাকে এবং তাদের মধ্যে একটি অন্যতম ইন্দ্রিয় হল শ্রবনেন্দ্রিয়। তাই কথনের পাশাপাশি শ্রবণ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক।

শ্রবণ দক্ষতা কাকে বলে | Listening Skills

শ্রবণ একটি সক্রিয় প্রক্রিয়া। শ্রবণ হল মনোযোগ সহকারে শোনার কাজ। এটি যোগাযোগ প্রক্রিয়ায় সঠিকভাবে বার্তা গ্রহণ ও ব্যাখ্যা করার ক্ষমতা। তাই শ্রবণ সমস্ত কার্যকরী যোগাযোগের অন্যতম চাবিকাঠি। অর্থাৎ ভালো শ্রোতা বা শ্রবণ দক্ষতা কথন দক্ষতায় সাহায্য করে থাকে।

শ্রবণ দক্ষতার বিভিন্ন সংজ্ঞা বর্তমান, সেগুলি হল –

1. Oxford Dictionary অনুসারে – শ্রবণ দক্ষতা হল অন্য ব্যক্তিরা যা বলছে তার প্রতি মনোযোগ দেওয়ার এবং কার্যকরভাবে ব্যাখ্যা করার ক্ষমতা।

2. Thomlison (1984) বলেছেন – সক্রিয় শ্রবণ, যা কার্যকর যোগাযোগের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

তাই আগ্রহ ও মনোযোগ সহকারে কোন কিছু শ্রবণ করা ও তার অর্থ বুঝতে পারেকে শ্রবণ দক্ষতা বলে। অর্থাৎ শ্রবণ দক্ষতা হল সক্রিয়ভাবে এবং মনোযোগ সহকারে গ্রহণ করার, ব্যাখ্যা করার এবং অন্যদের দ্বারা প্রচারিত কথ্য ভাষা বা শ্রবণ সংক্রান্ত তথ্য বোঝার ক্ষমতা।

শ্রবণ দক্ষতার মূলনীতি

শ্রবণ দক্ষতা (Listening Skills) হল যোগাযোগের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। শ্রবণ দক্ষতার মূলনীতি বিভিন্ন দিক থেকে পরিলক্ষিত হয়। সেগুলি এখানে আলোচনা করা হল –

1. কথা না বলা

শ্রবণ দক্ষতার এটি একটি অন্যতম নীতি হল কথা না বলা। তাই কেবলমাত্র শ্রবণ করো (Don’t talk, only listen)। তাই যখন অন্য কেউ কথা বলছে, তখন তারা কী বলছে তা শ্রবণ করা গুরুত্বপূর্ণ।

2. ধৈর্যশক্তি

শ্রবণ দক্ষতার এটি একটি অন্যতম নীতি হল ধৈর্য। এক্ষেত্রে কিছু ব্যক্তি নিজেকে প্রকাশ করতে বা সঠিক শব্দ খুঁজে পেতে বেশি সময় নিতে পারে।

3. সহানুভূতি

শ্রবণ দক্ষতার ক্ষেত্রে একটি অন্যতম নীতি বক্তার দৃষ্টিভঙ্গি এবং অনুভূতি বোঝার চেষ্টা করা। বক্তার দৃষ্টিভঙ্গি আরও ভালভাবে উপলব্ধি করতে নিজেকে আরোও বেশি সক্রিয় করে তুলতে হবে।

4. সক্রিয় শ্রবণ

শ্রবণ দক্ষতার এটি অন্যতম নীতি। বক্তার প্রতি ব্যক্তির মনোযোগ কেন্দ্রীভূত করে এবং আগ্রহ দেখিয়ে শ্রবণ প্রক্রিয়ায় শ্রোতার সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহন করা প্রয়োজন।

5. অমৌখিক যোগাযোগ

অমৌখিক যোগাযোগ বা অবাচনিক যোগাযোগ প্রবন্ধ দক্ষতার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ নীতি। অর্থাৎ শ্রবণ। দক্ষতা শুধু শোনা নয় শ্রবণের সাথে সাথে বরং বক্তার শারীরিক ভাষা, মুখের অভিব্যক্তি এবং অঙ্গভঙ্গির দিকে মনোযোগ দিতে হবে।

6. যথাযথভাবে উত্তর দান

যথাযথভাবে উত্তর দান শ্রবণ দক্ষতার এটি একটি অন্যতম নীতি। কারণ শ্রবণ দক্ষতার ক্ষেত্রে একদিকে থাকেন শ্রোতা এবং অপরদিকে থাকেন বক্তা। তাই শ্রোতা ও বক্তার মধ্যে পারস্পরিক ক্রিয়া প্রতিকার মধ্য দিয়ে শ্রবণ দক্ষতা সম্পন্ন হয়।

উপসংহার (Conclusion)

শ্রবণ দক্ষতা (Listening Skills) শিক্ষার্থীদের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা। শ্রবণ দক্ষতার উপর ভিত্তি করে ব্যক্তির বা শিক্ষার্থীদের বাচনিক বিকাশ ত্বরান্বিত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে যারা কানে শুনতে পায় না তাদের কথন দক্ষতার বিকাশ খুবই ধীরগতিতে হয় বা একেবারে হয় না বললেই চলে।

তাই কখন দক্ষতা বা কথা বলার ক্ষমতা শ্রবন দক্ষতার উপর নির্ভরশীল করে। আধুনিক শিক্ষা ক্ষেত্রে শ্রবন দক্ষতার উপর গুরুত্ব আরোপ করে শিক্ষার্থীদের শ্রবণ দক্ষতা বিকাশের দিকটির উপর গুরুত্ব আরোপ করা হচ্ছে। অর্থাৎ শিক্ষার্থীদের ভালো বক্তার পাশাপাশি ভালো শ্রোতার উপযোগী করে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে শ্রবন দক্ষতা বিশেষ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে।

 শিক্ষায় যোগাযোগের অর্থ, সংজ্ঞা ও বৈশিষ্ট্যযোগাযোগের প্রধান ৮টি উপাদান
যোগাযোগের শ্রেণিবিভাগকার্যকরী যোগাযোগের বাধাসমূহ

গ্রন্থপঞ্জি

প্রশ্ন – শ্রবণের তিনটি মৌলিক দক্ষতা কি কি?

উত্তর – শ্রবণের তিনটি মৌলিক দক্ষতা হল মনোভাব, মনোযোগ এবং সমন্বয়। অর্থাৎ এই তিনটি মৌলিক দক্ষতার মাধ্যমে শ্রবণ দক্ষতা স্বয়ংসম্পূর্ণতা লাভ করে।

প্রশ্ন – ভালো শ্রবণ দক্ষতা কি কি?

উত্তর – ভালো শ্রবণ দক্ষতা গুলি হল – মনোযোগ সহকারে শ্রবণ, সক্রিয়ভাবে শ্রবণ, সঠিকভাবে উপলব্ধি বা অর্থের উপলব্ধি এবং শারীরিক ও মানসিক ভাবে প্রস্তুতি প্রভৃতি।

প্রশ্ন – শ্রবণ ও শোনার মধ্যে পার্থক্য কি?

উত্তর – ১. শোনা মানে শুধু শব্দ উপলব্ধি করা বা শব্দ শোনা।
আবার শ্রবণের অর্থ হল শোনার সাথে সাথে শব্দের অর্থ উপলদ্ধি করা।
২. শোনা একটি নিষ্ক্রিয় কার্যকলাপ।
আবার শ্রবণ একটি সক্রিয় প্রক্রিয়া।

আরোও পড়ুন

Leave a Comment